Honda E-Scooter: অ্যাকটিভার থেকেও কম দামে ইলেকট্রিক স্কুটার আনছে হন্ডা!

Spread the love

Honda E-Scooter Price: ভারতীয় বাজারের জন্য বেশ কয়েকটি বৈদ্যুতিক স্কুটারের বিষয়ে কাজ করছে Honda। আর সেই ই-স্কুটারের দাম এখনকার পেট্রোলচালিত অ্যাকটিভার চেয়েও কম হব। এমনটাই জানালেন সংস্থার কর্তা আত্সুশি ওগাতা। তনি জানান, আগামিদিনে বৈদ্যুতিক স্কুটার নিয়ে আরও বেশি আগ্রাসী হবে হন্ডা। ২০৩০ সালের মধ্যেই ভারতের ই-স্কুটার বাজারের ৩০% দখল করার পরিকল্পনা হন্ডার। আর তার জন্য, আগামী ৮ বছরের মধ্যেই ৩টি ই-স্কুটার আনতে চলেছে সংস্থা।

বর্তমানে হন্ডা অ্যাকটিভার এক্স-শোরুম দাম ৭২,০০০ টাকা থেকে ৭৫,০০০ টাকার মধ্যে। অর্থাত্, এর থেকেও কম দামে মিলবে হন্ডার ই-স্কুটার।

আপাতত ভারতের বাজারে মাত্র দু’টি পুরনো টু হুইলার ব্র্যান্ডই ইলেকট্রিক স্কুটার নিয়ে কাজ করছে। একটি হল বাজাজ অটো এবং অপরটি টিভিএস মোটর্স। ইলেকট্রিক টু হুইলার স্পেসে একটি ওকিনাওয়া, এথারের মতো সংস্থাও ভাল ব্যবসা বৃদ্ধি করছে। ওলা ইলেকট্রিক শুরুটা দারুণ করলেও সামান্য হোঁচট খেয়েছে। তবে নিজেদের ঘুরে দাঁড় করাতে বিপুল বিনিয়োগ করছে তারা। ফলে সব মিলিয়ে ভারতের ইলেকট্রিক স্কুটারের বাজারে দ্রুত উত্থান যে সময়ের অপেক্ষামাত্র তা বলাই বাহুল্য। আর সেই বাজারে হন্ডার মতে সংস্থাও প্রবেশ করে যে হইচই পড়ে যাবে, তা বলাই যায়। আরও পড়ুন: ই-স্কুটারের ব্যাটারিতে আগুন লাগে কেন? সত্যিটা জানলে অবাক হবেন

কবে আসছে? সূত্রের খবর, আগামী ২০২৪-২৫ সালের মধ্যেই নতুন ই-স্কুটার বাজারে আনতে চলেছে হন্ডা। ইতিমধ্যেই সেই স্কুটারের টিজার ছবি প্রকাশ করেছে সংস্থা। ছবিটি ছায়ার আকারে। আপাতদৃষ্টিতে দেখতে যেন অনেকটা হন্ডা অ্যাকটিভার মতোই।

এই সেই টিজার। ছবি: হন্ডা
এই সেই টিজার। ছবি: হন্ডা (Honda)

যাতায়াত-ই মোদ্দা কথা

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, হন্ডার এই ই-স্কুটার সম্ভবত অ্যাকটিভার ভাবনা থেকেই বানানো হবে। অর্থাত্ লুকস, ফিচার্সের থেকেও, আসল কাজ- মাইলেজ, সস্তা দাম ও রাইড কোয়ালিটিতে নজর দেওয়া হবে। আরও পড়ুন: Kawasaki ZX-10R: তিনটি গাড়ির সমান দাম! কী আছে এই সুপারবাইকে?

ব্যাটারির চিন্তা

সম্প্রতি ভারতে Honda Benly-e বৈদ্যুতিক স্কুটার পরীক্ষা হতে দেখা গিয়েছে। এই ই-স্কুটারে যখন খুশি ব্যাটারি অদল-বদল করা যাবে। এমনই নয়া ব্যাটারি প্রযুক্তির প্রয়োগ নয়া স্কুটারেও করা হতে পারে। অর্থাত্, বাড়িতে একটি ব্যাটারি চার্জে বসিয়ে দেবেন। আর অপর ব্যাটারি স্কুটারে ভরে বেরিয়ে যাবেন। পরে ঘুরে এসে সেই ব্যাটারিটা চার্জে বসাবেন। অন্যদিকে চার্জ হওয়া ব্যাটারিটা লাগিয়ে নিলেই আবার চালানো যাবে। এমনই কোনও প্রযুক্তির বিষয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছে সংস্থা। বৈদ্যুতিক থ্রি-হুইলারের এমন সোয়াপেবল ব্যাটারির জন্য ব্যাঙ্গালুরুতে একটি পাইলট প্রকল্পও চালিয়েছে হন্ডা।

Source link


Spread the love
0 0 votes
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
Secured By miniOrange