Rishabh Pant Accident: দুর্ঘটনায় গাড়িতে আগুন ধরে কেন?

Spread the love

ভয়ানক দুর্ঘটনা। আর সেখান থেকে শারীরিক ও মানসিক বলে বেরিয়ে আসা। ‘সার্ভাইবাল’ কাকে বলে, তা যেন মনে করিয়ে দিলেন ঋষভ পন্ত। শুক্রবার সকালে দেরাদুনের রুরকির কাছে তাঁর বিলাসবহুল মার্সিজিড SUV-তে দুর্ঘটনা ঘটে। রিপোর্ট অনুযায়ী, মাটির স্তুপের কারণে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলন ঋষভ। দিল্লি-দেরাদুন হাইওয়ের ডিভাইডারে ধাক্কা মারে তাঁর গাড়ি। এরপর বেশ কিছুটা দূর পর্যন্ত ছিটকে যায়। ঘটনার প্রায় সঙ্গে সঙ্গে গাড়িতে আগুন ধরে যায়। এমন সময়ে জানলার কাঁচ ভেঙে সেখান থেকে বেরিয়ে আসেন ঋষভ। কঠিন পরিস্থিতিতেও মাথা ঠান্ডা রেখে প্রতিক্রিয়া যে তাঁর সহজাত, তা আরও একবার প্রমাণ করলেন দুঁদে ক্রিকেটার। আরও পড়ুন: আমি ক্রিকেট দেখি না, তাই জানতাম না তিনি কে? পন্তকে উদ্ধার করা বাস চালকের উত্তরে অবাক সকলে

সৌভাগ্যবশত, রিষভের খুব বেশি আশঙ্কাজনক চোট লাগেনি। তবু সামান্য অগ্নিদগ্ধ হয়েছেন। স্থানীয় কয়েকজনও তাঁকে সাহায্য করেন।

গাড়িতে আগুন

সিনেমায় অনেকেই দেখেছেন, কীভাবে দুর্ঘটনার পর দাউ-দাউ করে গাড়ি জ্বলে ওঠে। এটি কিন্তু মোটেও অতিনাটকীয়তা নয়। বাস্তবেও অনেক ক্ষেত্রেই এমনটা হয়।

শুক্রবারের ঘটনাতেও সংঘর্ষের পরপরই জ্বলে ওঠে ঋষভের গাড়ি।

এমনিতেই জ্বালানি লিক, ইঞ্জিন বা ব্যাটারি থেকে আগুন লাগতে পারে। তাছাড়া আধুনিক গাড়ি প্রকৃত অর্থেই যতুগৃহ। গাড়ির প্লাস্টিক, ফোম, বৈদ্যুতিক তার, কাপড় সবই দাহ্য পদার্থ। ফলে একবার আগুন লাগলেই তা দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে বেশি সময় লাগে না। 

এমন দুর্ঘটনা যে কোনও সময়েই ঘটতে পারে। ফলে প্রত্যেকের এই বিষয়ে একটু ধারণা করে রাখা উচিত্। এমন পরিস্থিতিতে কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে কী করা উচিত্?

  • গাড়ি দুর্ঘটনা হলেই প্রথম অগ্রাধিকার হবে সেখান থেকে বের হওয়া। অনেক ক্ষেত্রে গাড়ি উল্টে গিয়ে দরজা খোলা যায় না। এমন পরিস্থিতিতে দ্রুত দরজার কাঁচ ভাঙার চেষ্টা করতে হবে। আঘাত সহ্য করার মতো অবস্থায় থাকলে সেটিই একমাত্র পথ। একইভাবে জানলার কাঁচ ভেঙে প্রত্যক্ষদর্শীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে হবে। উদ্বারকারী কেউ এলে তাঁকেও আপনাকে বের করে নিয়ে যাওয়ার অনুরোধ করতে হবে।
  • এর জন্য কোনও ধাতব, টিকালো কিছু দিয়ে জানলায় আঘাত করতে হবে। উদাহরণস্বরূপ, মার্কিন মুলুকে এক গাড়ি দুর্ঘটনায় এক ব্যক্তি কোমরের বেল্ট খুলে তার বাকেলটি জুতোর তলায় চেপে ধরেন। সেটি দিয়ে কাঁচের জানলায় আঘাত মেরে ভেঙে বেরিয়ে এসেছিলেন।
  • একইভাবে এমন ক্ষেত্রে প্রত্যক্ষদর্শী হলে সবার আগে আহতকে গাড়ি থেকে বের করে দূরে সরিয়ে নিয়ে যেতে হবে।
  • সিটবেল্ট খুলতে সমস্যা হলে তা কোনও ধারাল বস্তু দিয়ে কেটে ফেলা দরকার।
  • এখনকার বেশিরভাগ গাড়িতেই ফার্স্ট এইড কিট থাকে। সেটি অবহেলা করা অনুচিত। নির্দিষ্ট স্থানে রাখা প্রয়োজন। রক্তপাত হলে একটি গজ, ব্যান্ডেজই অনেক উপকারে আসতে পারে।
  • একবার গাড়ি থেকে বেরিয়ে দূরে সরে আসা সম্ভব হলে, তারপর আপদকালীন সহায়তার জন্য ফোন করতে হবে। ১০০ ডায়াল করলে পুলিশকর্মীরাই প্রয়োজনীয় সাহায্য পাঠাবেন। আরও পড়ুন: রক্তে মুখ ভেসে যাচ্ছিল, জামাকাপড় ছেঁড়া- পন্তকে উদ্ধারকারী জানালেন আসল ঘটনা
  • দুর্ঘটনার পর গাড়ি জ্বলে উঠলে, তার থেকে দূরত্ব বজায় রাখুন। যে কোনও সময়ে বিস্ফোরণ হতে পারে। আশেপাশের রাস্তা থেকে সমস্ত গাড়ি সরিয়ে দেওয়া প্রয়োজন।

Source link


Spread the love
0 0 votes
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
Secured By miniOrange